এ রোগের আক্রমনে আমের পাতা, পুষ্প মনঞ্জরী ও শাখা প্রশাখার উপর সাদা গুড়ার মত ছত্রাকের স্পোর বা বীজকনা দেখা দেয়। এর ফলে ফুল ও গুটি শুকিয়ে ঝড়ে পড়ে। পুষ্প মঞ্জরী বৃদ্ধি ও গুটি বাঁধার সময় মেঘলা দিন ও উচ্চ আদ্রতার সাথে যদি রাতে নিম্ন তাপমাত্রা থাকে তবে এ রোগের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যায়।

প্রতিকারঃ

প্রতি লিটার পানিতে থিওভিট ২ গ্রাম অথবা ব্যভিষ্টিন ১ গ্রাম বা বেনলেট ১ গ্রাম অথবা টিল্ট ২৫০ইসি ০.৫ মিলি হারে মিশিয়ে ভালোভাবে স্প্রে করতে হবে। গাছে মুকুল আসার পর কিন্তু ফুল ফোটার পূর্বে ১ম বার স্প্রে করতে হবে প্রতিরোধ মূলক ব্যবস্থা হিসেবে। যদি প্রয়োজন হয়তবে আরও ২টি স্প্রে ১৫ দিন পর অন্তত ফুল সম্পূর্ন ফোটার পর এবং গুটি বাধার পর দিতে হবে।